রাসুলুল্লাহ (সা.) -এর দাওয়াত


রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) রাষ্ট্রক্ষমতার লোভে ইসলাম প্রচার করেননি। মক্কায় তাঁকে রাষ্ট্রক্ষমতা অফার করা হয়েছিল। তিনি তা উপেক্ষা করে মানুষকে ইসলামের দা’ওয়াহ দিতে থাকেন। ১৩ বছর ইসলামের দা’ওয়াহ দেয়ার পর তিনি অটোম্যাটিকালি রাষ্ট্রনায়ক হয়ে যান।
.
আয়রনিটা হলো ১৩ বছর তিনি যাদের মাঝে দা’ওয়াতি কাজ করলেন, সেই মক্কাবাসীরা তাঁকে রাষ্ট্রনায়ক মেনে নেয়নি। সেনাবাহিনী এনে সেটা বিজয় করতে হয়েছিল। বরং মদীনা থেকে আসা সাহাবাগণ তাঁর থেকে ইসলাম শিখে মদীনায় গিয়ে প্রচার করতেন। সেখানে মোটামুটি ১ বছরের দা’ওয়াতি কাজের পরই রাষ্ট্রপ্রতিষ্ঠার পরিবেশ চলে আসে। আর অনারব বাদশাহদের কাছে দা’ওয়াহ হতো তিন দিন। চিঠি পাঠানো হতো ইসলামের দা’ওয়াহ দিয়ে। গ্রহণ না করলে সেনাবাহিনী যেতো। ৩ দিন দা’ওয়াহ দিত। তারপরেও কাজ না হলে ক্বিত্বাল শুরু হতো।
.
আজকে আমাদের দা’ওয়াহ এত মিসকীন হয়ে গেল যে ১০০ বছরের দা’ওয়াহর পরও সেই পরিবেশ আসে না। হয় আমরা নবীর তরিকায় দা’ওয়াহ দিচ্ছি না যাতে যোগ্য লোক তৈরি হতে পারে। অথবা যোগ্য লোক তৈরি হয়ে বসে আছে যাদেরকে পরের স্টেপে কাজে লাগানো হচ্ছে না।
.
মক্কার মুশরিকদের অফার করা ক্ষমতা আর মদীনার মুসলিমদের অফার করা ক্ষমতার মাঝে পার্থক্য আছে। মক্কাবাসীদের অফারের মূলকথা ছিল কম্প্রোমাইজ। আমরা তোমাকে ক্ষমতা দিচ্ছি, তুমি ইসলাম প্রচার বন্ধ করো। আর মদীনাবাসীদের অফারের মূলকথা ছিল, আমরা আপনাকে ক্ষমতা দিচ্ছি, আপনি এটা ব্যবহার করে ইসলামকে বিজয়ী করুন। মক্কাবাসীরা নারী আর সম্পদও অফার করেছিল। রাসুলুল্লাহ তা নেননি। কারণ তাঁদের উদ্দেশ্য ছিল কম্প্রমাইজেশান। পরে আল্লাহর নির্দেশে চারটির বেশি বিয়ে করেছেন। এতে কাফিররাই ইসলামের সাথে কম্প্রোমাইজ করেছে। জামাতার প্রচারিত ধর্মের সাথে শত্রুতা থামিয়ে দিয়েছে।
.
মানুষ এই দুটো আলাদা বিষয় গুলিয়ে ফেলে। বিভিন্ন জায়গায় কুফফারদের সাথে কম্প্রোমাইজ করে ‘মুসলিম’রা ক্ষমতায় বসছে। তাদেরকে অভিনন্দনের বন্যায় ভাসিয়ে দেয়া হচ্ছে। এটা হলো সেই মক্কাবাসীদের অফার করা ক্ষমতা। আর নববী তরিকায় যারা ইসলামের দা’ওয়াহ দেয় তাদেরকে লেকচার দেয়া হয় “মসনদের মোহে ইসলাম প্রচার কোরো না।”
.
জনৈক ভাই যথার্থই বলেছেন যে আমাদের ইসলামের জ্ঞান এখনো আসল জিনিসটার শোরুম হয়ে উঠতে পারেনি। বিভিন্ন জায়গা থেকে আনা স্পেয়ার পার্টসের জাঙ্কইয়ার্ড হয়ে আছে।

Collected From Brother
Ibn Mofassel

Advertisements

About সম্পাদক

সম্পাদক - ইসলামের আলো
This entry was posted in ইসলাম, উপদেশ, দাওয়াত. Bookmark the permalink.

One Response to রাসুলুল্লাহ (সা.) -এর দাওয়াত

  1. ইসলাম বলেছেন:

    হুম! ভালো লাগলো

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s