ইসলাম বিদ্বেষীদের তিনটি অভিযোগের জবাব


লিখেছেন – শেখ ফরিদ আলম

 

❖ সব মুসলিম সন্ত্রাসী নয় ঠিকই কিন্তু সব সন্ত্রাসী মুসলিম

কেন?
☛ সব সন্ত্রাসী মুসলিম এই তথ্য কোথায় পেলেন? পৃথিবী যত নিষিদ্ধ সংগঠন আছে তার ১০% ও মুসলিম সংগঠন নয়। ভারতের কথাই ধরুন, এল.ই.টি, আলফা, নকশাল, মাওবাদী কত সংগঠন আছে! কয়েক সপ্তাহ আগেই ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী লোকসভায় ভারতের নিষিদ্ধ সন্ত্রাসবাদী সংগঠন গুলোর নাম পেশ করেন। ৬৫ টি সংগঠনের মধ্যে মাত্র ৫ টি সংগঠনের সাথে মুসলিমদের নাম জড়িত আছে। বাকী ৬০ টি সংগঠন কারা চালাচ্ছে??

❖ ভারতের সব ব্লাস্ট মুসলিমরা করে। যে দেশের খায় সে দেশেরই ক্ষতি করে।
☛ এটা মুসলিমদের উপর অপবাদ ছাড়া কিছুই নয়। মালেগাও ব্লাস্ট, সমঝোতা এক্সপ্রেস ব্লাস্ট, মক্কা মসজিদ ব্লাস্ট, আজমের শরীফ ব্লাস্ট, থানে সিনেমা ব্লাস্ট, Nanded Bomb Mishap, Kanpur Bomb Mishap, গোয়া ব্লাস্ট এসবের সাথে কিন্তু মুসলিমরা জড়িত নাই। জড়িত আছে সন্দীপ ডান্ডে, রামজী রামচন্দ্র কলসাংগ্রা, লোকেশ শর্মা, সুনিল যোশি, জনজাগ্রুতি সমিতি, সনাতন সংস্থা, রমেশ হানুমন্থ গাটকরী, মাঙ্গেশ দিনকার নিগম, প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর, লেফটানান্ট শ্রীকান্ত পুরোহিত, স্বামী আমৃতানন্দ দেব। এরা কি মুসলিম? মায়া কোদানী, বাবু বাজরাঙ্গী, দারা সিং এরাও মুসলিম নয়। কিন্তু এরা সন্ত্রাসী।

❖ যদি ইসলাম শান্তির ধর্ম হয় তবে মুসলিম দেশ গুলোতে এত অশান্তি কেন?
☛ ইসলাম চৌদ্দ’শ বছর ধরে পৃথিবীতে আছে। মুসলিম দেশ গুলোতে সমস্যা কত দিন ধরে? যেসব মুসলিম দেশে সমস্যা দেখছেন একটু খেয়াল করলেই দেখবেন তাতে পরোক্ষ বা প্রতক্ষভাবে আমেরিকার নামও জড়িয়ে আছে। ইরাক, আফগানিস্থান, মিশর, লিবিয়া সব ঝামেলার মুলে আমেরিকা। ইস্রাইলের মতো ছোট্ট দেশ পরমানবিক বোমা বানালে দোষের কিছু নেই কিন্তু ইরানের মতো ঐতিহ্যবাহী, শক্তিশালী দেশ বানালেই যুদ্ধ। কেন? পৃথিবীতে যত সমস্যা তার বেশির ভাগই আমেরিকার দ্বারা সৃষ্ট। কিন্তু আফসোস আপনাদের মুখ থেকে আমেরিকার ব্যাপারে কিচ্ছু বের হয়না। পৃথিবীতে ৫৬ টিরও বেশি মুসলিম রাষ্ট্র আছে। যার মধ্যে মাত্র কয়েকটি দেশেই সমস্যা। বাকীরা কিন্তু খুব সুখে শান্তিতেই আছে। আর মুসলিম দেশের শান্তি অশান্তির সাথে ইসলামের কি সম্পর্ক? কেউ যদি ইসলাম মেনে না চলে তাতেও কি ধর্মের দোষ!

 

Advertisements

About সম্পাদক

সম্পাদক - ইসলামের আলো
This entry was posted in আলোচনা, ইসলাম সম্পর্কে ভুল ধারণা, বিতর্ক, ভারতীয় মুসলিম, সন্ত্রাসবাদ and tagged . Bookmark the permalink.

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s